Friday , December 14 2018
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / লীড নিউজ / সাবেক সাংসদ মুরাদ জংসহ বিমানের আরোহীরা দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ায় সাভারে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত
সাবেক সাংসদ মুরাদ জংসহ বিমানের আরোহীরা দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ায় সাভারে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

সাবেক সাংসদ মুরাদ জংসহ বিমানের আরোহীরা দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ায় সাভারে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

সাভার প্রতিনিধি: সাভারের সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার তৌহিদ জং মুরাদসহ বিমানের আরোহীরা দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়ায় শুক্রবার দুপুরে সাভারের বক্তারপুরে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। সাভার থানা ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম আহবায় মো: মোক্তার হোসেন এই দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেন। দোয়া মাহফিল শেষে এতিমদের মধ্যে তবারক বিতরণ করা হয়। এসময় সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার তৌহিদ জং মুরাদসহ বিমানের আরোহীদের মঙ্গল কামনার দোয়া পাঠ করা হয়। উল্লেখ্য, ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কক্সাজারগামী ইউএস-বাংলার একটি ফ্লাইট চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করে। পাইলটের অসাধারণ দক্ষতায় ৭৩৭ মডেলের বোয়িং বিমানটি ক্ল্যাস ল্যান্ডিং থেকে বেঁচে গেছে। এ বিমানের যাত্রী ছিলেন, সাভারের সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার মো: তৌহিদ জং মুরাদসহ তার ৬ সহযাত্রী এবং ফ্লাইটে থাকা ১১ শিশুসহ (ইনফ্যান্ট) ১৬৪ যাত্রী ও ৭ ক্রু। বুধবার (২৬-৯-২০১৮) দুপুর দেড়টার দিকে বিমানটি শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণের করেছে। জানা যায়, সাভারের সাবেক সংসদ সদস্য এবং আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তালুকদার তৌহিদ জং মুরাদ তার ৫ সহকর্মী নিয়ে কক্সবাাজার যাচ্ছিলেন। কিন্তু পথিমধ্যে যান্ত্রিক গোলাযোগ দেখা দিলে বিমানটি চট্টগ্রামে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। এ ঘটনায় পাইলটের অসাধারণ দক্ষতায় মুরাদ জংসহ সকল বিমানযাত্রী বেঁচে যায়। সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার মো: তৌহিদ জং মুরাদের সঙ্গে তার অপর ৫ সহযাত্রীদের মধ্যে ছিলেন সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দার, যুবলীগ নেতা মোক্তার হোসেন, এ এইচ জুয়েল, মো: মনসুর ও মো: ইলিয়াস। দুর্ঘটনার পর চট্টগ্রাম থেকে তালুকদার মো: তৌহিদ জং মুরাদ তার ৫ সহযাত্রী নিয়ে সড়ক পথে ঢাকায় ফিরে এসেছেন। সাবেক সংসদ সদস্য তালুকদার মো: তৌহিদ জং মুরাদ এ দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়া মহান আল্লাহপাকের কাছে অশেষ শুকরিয়া আদায় করেন। চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-পরিচালক জসিম উদ্দিন বলেন, ‘ইউএস-বাংলার একটি ফ্লাইট চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিটের পাঁচটি গাড়ি ঘটনাস্থলে অবস্থান নেয়। একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ইউএস-বাংলার ৭৩৭ মডেলের বোয়িং বিমানটির সামনের নোজ হুইল কাজ না করায় পেছনের চাকাগুলোর ওপর ভর করে বিমানটি শাহ আমানতে অবতরণ করে। অবতরণের সময় বিমানটির সামনের অংশে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। সেখানে উপস্থিত ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত তা নিয়ন্ত্রণে আনেন। তবে সব যাত্রী অক্ষত অবস্থায় বিমান থেকে নেমে আসতে সক্ষম হন। সংশি¬ষ্ট সূত্রে আরও জানা যায়, ঢাকা থেকে কক্সবাজারগামী ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমানটিতে ১৭১ জন যাত্রী ছিল। সামনের নোজ হুইল কাজ না করায় বিমানটি কক্সবাজার বিমানবন্দরে অবতরণে ব্যর্থ হয়। পরে বিমানটি চট্টগ্রামের আকাশে অনেক্ষণ উড়তে থাকে। অনেকেই আশঙ্কা করেছিলেন, বিমানটি ক্রাস ল্যান্ডিং করবে। তবে দুপুর দেড়টার দিকে পাইলটের দক্ষতায় বিমানটি শাহ আমানত বিমানবন্দরে শুধু পেছনের চাকাগুলোর ওপর ভর করে ল্যান্ডিং করে। ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক (জিএম-পিআর) কামরুল ইসলাম বলেন, ফ্লাইটে ১১ শিশুসহ (ইনফ্যান্ট) ১৬৪ যাত্রী ও সাত ক্রু ছিল। তাদের সবাই নিরাপদে আছেন। তিনি আরও বলেন, ফ্লাইটটি পরিচালনা করছিলেন ক্যাপ্টেন জাকারিয়া। তিনি অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবেলা করে বিমানটি নিরাপদে অবতরণ করান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*