Tuesday , November 13 2018
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / রাজনীতি / সাভারে আওয়ামীলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ তুলে আবারো বিতর্কে সাংসদ এনামুর
সাভারে আওয়ামীলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ তুলে আবারো বিতর্কে সাংসদ এনামুর

সাভারে আওয়ামীলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ তুলে আবারো বিতর্কে সাংসদ এনামুর

মিঠুন সরকার: ঢাকা-১৯ আসন, সাভারের সংসদ সদস্য ও ঢাকা জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ডা. এনামুর রহমান বলেছেন, সাভারে আমার দলের কিছু প্রভাবশালী নেতা চাঁদাবাজি করছে। দলের মহিলা লীগ নেত্রীসহ অনেক নেতার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে। এমনকি কিছু প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা ৫ থেকে ১০ লাখ টাকার চাঁদা দাবির অভিযোগ করছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নিতে ব্যবসায়ীরা ভয় পাচ্ছে। আর তাদের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীরা থানায় কোন অভিযোগ দিলেও পুলিশ ব্যবস্থা নিতে সাহস পাবে না। দলীয় নেতাদের চাঁদাবাজির ঘটনায় আমি বিব্রতবোধ করছি। মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযানের নির্দেশ সত্ত্বেও সাভারে উল্লেখযোগ্য কোন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়নি। ফলে সাভারের সাধারণ মানুষের কাছে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযানের নির্দেশ প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। সাভার উপজেলার মাসিক আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় রবিবার প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. এনামুর রহমান এমপি এ কথা বলেছেন। এদিকে সাংসদ এনামুর রহমানের বক্তব্য সত্য নয় বলে দাবী করেছেন সাভার পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাভার পৌরসভার মেয়র আলহাজ¦ আব্দুল গনি। মেয়র আলহাজ¦ আব্দুল গনি বলেন, ডা: এনামুর রহমানের মতো নেতার কারণে সরকারের অনেক সফলতা ম্লান হয়ে যাচ্ছে। আমি ওনার বক্তব্যের বিষয়ে বিব্রতবোধ করছি। দলীয় নেতাদের চাঁদাবাজীর কথা তুলে ধরে সাংসদ দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছেন। আমি শীঘ্রই এ সব বিষয় নিয়ে দলীয় ফোরামে আলোচনা করবো। সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা দৌলা বলেন, এনামুর রহমান দলে নতুন এসেছেন আর আমরা দল করতে করতে বুড়ো হয়ে গেছি। সাংসদ এনাম নিজেই চাঁদাবাজিতে সম্পৃক্ত আছেন তাই উনি চাঁদাবাজির খবর জানেন। চাঁদাবাজদের নাম প্রকাশের আহবান জাানান তিনি। এনামুর রহমান দলের লোক নন তাই তিনি দলকে হেয় করতে এমন মিথ্যাচার করেছেন বলেও জানান হাসিনা দৌলা। এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঢাকা জেলা উত্তর ছাত্রলীগের এক নেতা জানান, সাংসদ এনামুর রহমান আওয়ামীলীগ আদর্শের লোক নয়। উনি সাংসদ থাকাকালীন সময়ে চাঁদাবাজি হলে এর দায়তো উনার উপর বর্তায়। অথচ উনি দলীয় নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন। ডা. এনামুর রহমান এমপি আরও বলেছেন, সাভার পৌর এলাকার বিভিন্ন রাস্তাঘাটের অবস্থা খুবই খারাপ। বিভিন্ন এলাকায় ময়লা আবর্জনার স্ত’প দেখলে মনে হয়, সাভার পৌর এলাকা একটি ডাম্পিং জোন। সাভার পৌর মেয়রের সঙ্গে নাগরিকদের এ সমস্যা নিয়ে কথা হয়েছে। কিন্তু তিনি সমস্যাগুলো দেখে চুপ থাকলে আমার করার কি আছে। তিনি বলেছেন, সাভার শিল্পকলা একাডেমির জন্য অনেক বরাদ্দ এনেছি। এ প্রতিষ্ঠানের জন্য জমি উদ্ধারে আমার একা যেতে হয়। কেউ সহযোগিতা করে না। মনে হয়, আমার দলও চায় না সাভারে ভালো কোন কাজ হউক। তিনি সভায় উপস্থিত সকলের প্রতি সাভারের উন্নয়নে একটি শক্তিশালী নাগরিক কমিটি গঠনের আহবান জানান। সাভার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ রাসেল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অনেকের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাভার কলেজের অধ্যক্ষ মো: ইলিয়াস খান, কাউন্দিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান খান শান্ত, সাভার সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সোহেল রানা, বনগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, বিরুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান সুজন, সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আমজাদুল হক, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা মো: কামাল ফকির, আশুলিয়া থানার ওসি (অপারেশন) সাইফুল ইসলাম, সাভার মডেল থানার এসআই সেলিম রেজা প্রমুখ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*