Saturday , August 18 2018
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / সারাদেশ / সাভার পৌর এলাকায় শতাধিক মাদকের স্পট রয়েছে
সাভার পৌর এলাকায় শতাধিক মাদকের স্পট রয়েছে

সাভার পৌর এলাকায় শতাধিক মাদকের স্পট রয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর দেশব্যাপি সাড়াশি অভিযান ঘোষণার পর থেকেই পুলিশ, পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)সহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অভিযানে নেমেছে। এ সাড়াশি অভিযানে দেশের শতাধিক মাদক ব্যবসায়ী ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছে। এদেরমধ্যে ৩০ মে রাতে সাভার পৌর এলাকার মজিদপুর মহল্লার মাদক সম্রাট আতাউর রহমান আতা র‌্যাবের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে  রাজধানীর ভাষানটেক এলাকায় নিহত হন। এমন পরিস্থিতির মধ্যেও সাভার পৌর এলাকার বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় ইয়াবা, ফেন্সিডিল, হেরোইন, মদ, বিয়ার ও গাঁজার মতো মাদক দ্রব্য কেনা-বেচা হচ্ছে। পৌর এলাকায় সর্বত্র ছড়িয়ে যাচ্ছে মাদকের ব্যবহার। সমাজের বিত্তবান পরিবারের যুবক থেকে শুরু করে নিম্ন আয়ের পেশাজীবীরাও পিছিয়ে নেই মাদক গ্রহণ থেকে। কিন্তু বিশেষ অভিযানের সময়ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোন ভূমিকাই চোখে পড়ে না মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে। এলাকাবাসী ও অনুসন্ধান সূত্রে জানা গেছে, সাভার পৌর এলাকায় শতাধিক মাদকের স্পট রয়েছে। এরমধ্যে সাভারের ইমান্দিপুর, মজিদপুর, ব্যাংক কলোনি, উলাইল, কাঁচাবাজার, নামাবাজার, রাজাশন, বক্তারপুর বেদেপল্লী, আনন্দপুর, কর্ণপাড়া, নামাগেন্ডা, ব্যাংক টাউন, ভাটপাড়া, জালেশ্বর, রেডিও কলোনী, অমরপুর, বাড্ডা ভাটপাড়া, আইচানোয়াদ্দা, সিআরপি, আড়াপাড়া, ডগরমোড়া, জামশিংসহ বেশ কয়েকটি মাদকের স্পট উল্লেখযোগ্য। এ ছাড়া বাজার রোডের একটি ধানের চাতালে ও নামাবাজার ফেন্সি সুপার মার্কেটে মাদকের কারবার চলে বলে জানা গেছে। মাদকের এসব স্পট নিয়ন্ত্রণ করছে, মজিদপুর এলাকার ফুলির ছেলে রাজা (৩৫), রাজু ওরফে রাজু চাকমা, সাইদুল (৩০), ইমান্দিপুরের নসু মিয়ার ছেলে রিপন, পচাঁ মিয়ার মেয়ের জামাই স্বপন শরীফ, বাবুল (বরিশালের বাবুল), সাইফুল মিয়ার ছেলে সাগর, লতিফ মিয়ার ছেলে বাশার, মৃত আকাল আলীর ছেলে তাহের আলী, শুভ, শাহীনের ছেলে বাবু, ইমান্দিপুর চৌরাস্তার মৃত আব্দুল করিমের ছেলে মিক, ইমান্দিপুর কবরস্থানের রমি সিদ্দিক, ছোটবলিমেহের একসময়ের কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী মৃত আলমগীর ও কহির গোটা পরিবার এখন মাদক ব্যবসায়ী। উলাইলে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী কালু। এছাড়া জালেশ্বরের আলামিনের মা, খালা। তাদের সহায়তা করছেন অনন্যার মা শাহিনুর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*