Monday , May 28 2018
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / রাজনীতি / সাভারের জনবিচ্ছিন্ন নেতা ডা. এনামকে ফের মনোনয়ন দিলে নৌকা প্রতীকের ভরাডুবি হবে
সাভারের জনবিচ্ছিন্ন নেতা ডা. এনামকে ফের মনোনয়ন দিলে নৌকা প্রতীকের ভরাডুবি হবে

সাভারের জনবিচ্ছিন্ন নেতা ডা. এনামকে ফের মনোনয়ন দিলে নৌকা প্রতীকের ভরাডুবি হবে

মিঠুন সরকার: সাভার ও আশুলিয়া ঘুরে এবং তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এমপি ডা. এনামের কারণেই সাভার আওয়ামী লীগের অবস্থা এখন ভালো নেই। সংসদ সদস্য হওয়ার আগে তার সঙ্গে সাভার আওয়ামী লীগের কোনো যোগ ছিল না। আসছে নির্বাচনে মঞ্জুরুল আলম রাজীব, তালুকদার তৌহিদ জং মুরাদ, ফখরুল আলম সমর, আবু আহমেদ নাসিম পাভেল, ফিরোজ কবির, ফারুক হাসান তুহিন ও হাসিনা দৌলা নিজ নিজ শক্তি সঞ্চারে দল ভারী করছেন। এ ক্ষেত্রে কেন্দ্র থেকে ডা. এনামকে মনোনয়ন দিলেও তিনি অন্য কোন নেতাদের থেকে সমর্থন পাবেন না। এর ফলে নৌকা প্রতীকের ভরাডুবি হবে বলে জানান সাধারণ ভোটাররা। ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফিরোজ কবির বলেন, ডা. এনামকে প্রার্থী করলে ভোট কেন্দ্রে এনামের পক্ষে এজেন্টও খুঁজে পাওয়া যাবে না। এমনকি বিএনপিকে চ্যালেঞ্জ করা আওয়ামী লীগের জন্য কঠিন হবে। সংসদ সদস্য হওয়ার পর চিকিৎসা ব্যবসায় বেপরোয়া হয়ে ওঠেন এই সাংসদ। বিএনপির দুর্গ বলে পরিচিত ঢাকা-১৯ (সাভার ও আশুলিয়া) সংসদীয় আসনটিতে ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ সর্বোচ্চ ভোটে বিজয়ী হয়। অন্যদিকে রানা প্লাজা ধসে রাজনীতির হাওয়া বদলে যায়। রানা প্লাজা ধসের সময় মেডিকেলটির কার্যক্রম নিয়ে গণমাধ্যমেও বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। আর সেই এনাম মেডিকেলে লাশ আটকে রাখার বিষয়ে সম্প্রতি সংবাদ প্রচার করায় সাংবাদিকদের মামলার হুমকী প্রদান করেন বিতর্কিত এই সাংসদ। ঢাকা জেলা উত্তর ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সাথে আলাপকালে সাংসদ সাংবাদিকদের সন্ত্রাসী বলেও আখ্যা দেয়। এমকি প্রেস ক্লাব নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেন তিনি। এদিকে সাভারের সাংবাদিক সমাজ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। পাঁচজনকে ক্রসফায়ারে দিয়েছি, আরও ১৪ জনের লিস্ট করেছি। এখন সব ঠান্ডা। লিস্ট করার পর যে দু-একজন ছিল তারা আমার পা ধরে বলেছে, আমাকে জানে মাইরেন না। আমরা ভালো হয়ে যাব। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্য এনামকে কারন দর্শানোর নোটিশ দেয় যা সকলের জানা। টাকার বিনিময়ে সম্প্রতি নিজের একটি নারী কেলেঙ্কারির ঘটনা ধামাচাপা দিয়েছেন এই সাংসদ। সাভার উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিশু শিক্ষার্থীর সাথে কেলেঙ্কারির ওই ঘটনা এখন আর রটনা নয়। ডা. এনামের প্রথম স্ত্রী রওশন আক্তার চৌধুরী জানান, এমপি সাহেবের নারী কেলেঙ্কারির ঘটনা এখন সবারই জানা। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ডা. এনাম। বিএনপি সরকারের আমলে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী আমান উল্লাহ আমানের সাথে সখ্যতা ছিলো তার। ২০০১ সালের পর বিএনপি সরকার অনুমোদন দেয় এনাম মেডিকেল কলেজ’র। স্থানীয় নেতাকর্মীদের অভিযোগ, সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া সাহায্য, দোম্বার গোস্ত, অনুদান, টিআর, কাবিখার অর্থ বরাদ্দ সবকিছু এককভাবে হস্তক্ষেপ করেন সাভারের বিতর্কিত এই সাংসদ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*