Monday , September 24 2018
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / রাজনীতি / সাভার উপজেলা প্রকল্প অফিসে লুটপাটের দায় সাংসদ এনামের
সাভার উপজেলা প্রকল্প অফিসে লুটপাটের দায় সাংসদ এনামের

সাভার উপজেলা প্রকল্প অফিসে লুটপাটের দায় সাংসদ এনামের

মিঠুন সরকার: সাভার উপজেলায় কাজের বিনিময়ে খাদ্য (কাবিখা), কাজের বিনিময়ে টাকা (কাবিটা) ও টি আর (টেস্ট রিলিফ) প্রকল্পে নানা অনিয়ম-দুর্নীতি ও লুটপাটের প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। উন্নয়নমূলক প্রকল্পের নামে চলছে ভয়াবহ দুর্নীতির মহোৎসব। ২০১৫-২০১৬ ও ২০১৬-২০১৭ অর্থ বৎসরে স্থানীয় সাংসদের অধীনে বরাদ্দের সিংহভাগই সংশ্লিষ্ট প্রকল্প কমিটি নামমাত্র কাজ করেই কাগজে-কলমে প্রকল্প দেখিয়ে সরকারের ত্রাণ মন্ত্রণালয় প্রদত্ত বরাদ্দের বিপুল পরিমান খাদ্য শষ্য লুটপাট হলেও কোন ধরনের পদক্ষেপ নেয়নি সংশ্লিষ্ট বিভাগ। ফলে সরকারের লাখ লাখ টাকা এভাবেই লুটপাট হলেও এ নিয়ে কোন ধরনের মাথা ব্যথা নেই সংশ্লিষ্ট ত্রাণ বিভাগের। জানা যায়, ২০১৫-১৬ অর্থ বৎসরে সরকারের ত্রাণ অধিদপ্তর থেকে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে কাজের বিনিময়ে খাদ্য (কাবিখা) ও টি আর (টেস্ট রিলিফ) প্রকল্পের ৫ কোটি ৪৫ লাখ ৭২হাজার ২৬৬টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়। আর ২০১৬-১৭ অর্থ বৎসরে সরকারের ত্রাণ অধিদপ্তর থেকে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে টি আর (টেস্ট রিলিফ) ও কাজের বিনিময়ে টাকা (কাবিটা) প্রকল্পের ১১কোটি ১৫ লাখ ৫৮হাজার ৫৫৭টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এদের মধ্যে সিংহভাগটাই রয়েছে ঢাকা-১৯ আসনের স্থানীয় সাংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমানের মাধ্যমে বিশেষ বরাদ্দ। যার মধ্যে অর্ধেক উন্নয়ন প্রকল্প ও বাকি অর্ধেক সোলার প্রকল্প রয়েছে। কাজের বিনিময়ে খাদ্য (কাবিখা) এবং টেস্ট রিলিফ প্রকল্পে অনিয়ম ও দুর্নীতি হচ্ছে লাগামহীন ভাবে। অস্তিত্বহীন প্রকল্পের নামে হরিলুট করা হচ্ছে লাখ লাখ টাকা। উন্নয়নের নামে প্রকল্পের টাকা ভাগ বাটোয়ারা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। একাধিক প্রতিষ্ঠানের নামে ৩/৪বার করে একই কাজে অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও রেজিস্ট্রেশন বিহীন বিভিন্ন সংগঠন বা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে বাড়তি সুবিধা নিয়ে একাধিকবার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। পিআইও অফিস সূত্রে জানাগেছে, স্থানীয় সংসদ সদস্যের আওতায় টি আর, কাবিখা ও কাবিটার বিশেষ বরাদ্দ সাংসদের আস্থাভাজনরা পেয়ে থাকে। ফলে এসব প্রকল্পে অনিয়ম হলেও দেখার কেউ নেই। এ প্রসঙ্গে সাভার উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) একরামুল হক দাবী করেন, তাদের সব প্রকল্পে কোন দুর্নীতি হয়নি। সব নিয়ম অনুযায়ী হয়েছে। তবে যেখানে যা বরাদ্দ দিয়েছি তা সাংসদের কথামতোই দিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*