Tuesday , November 13 2018
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / সারাদেশ / সাভারের বিরুলিয়ার চেয়ারম্যানের ভাই মেরেজ মিয়াসহ ৬ জনকে চাঁদাবাজীর মামলায় জেলহাজতে প্রেরণ করেছে আদালত
সাভারের বিরুলিয়ার চেয়ারম্যানের ভাই মেরেজ মিয়াসহ ৬ জনকে চাঁদাবাজীর মামলায় জেলহাজতে প্রেরণ করেছে আদালত

সাভারের বিরুলিয়ার চেয়ারম্যানের ভাই মেরেজ মিয়াসহ ৬ জনকে চাঁদাবাজীর মামলায় জেলহাজতে প্রেরণ করেছে আদালত

রুবেল মিশ্র: সাভার উপজেলার বিরুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের ভাই মেরেজ মিয়াসহ ৬ জন চাঁদাবাজ কে মঙ্গলবার দুপুরে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত। ১৩জানুয়ারী আশুলিয়া মডেল টাউন প্রকল্পের চীফ সিকিউরিটি অফিসার মো: মতিউর রহমান বাদী হয়ে চাঁদাবাজীর অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। সাভার মডের থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম কামরুজ্জামান জানান, পুলিশ চাঁদাবাজদের গ্রেফতার করে সকালে আদালতে পাঠিয়ে দিয়েছে। সাভার মডেল থানায় ১৪৩/৪৪৭/৩৮৫/৩৭৯/৪৩৫/৪২৭/৫০৬ ধারায় অভিযোগ এনে বেআইনী জনতাবদ্ধে অনাধিকার প্রবেশ, চুরি, চাঁদাবাজি, অগ্নিসংযোগ ও ক্ষয়ক্ষতিসহ হুমকি প্রদানের অপরাধে অভিযুক্ত করে মামলাটি গ্রহণ করা হয় বলেও জানান ওসি। (মামলা নম্বর-২৮)। মামলার আসামীরা হলেন, কাকাব এলাকার আতাউল্লার ছেলে মেরেজ মিয়া (৪৫), মৃত ইন্তাজের ছেলে দেলু মিয়া (৫০), আক্কাস মাতব্বরের ছেলে মধু মিয়া (৩৩), মহিজ উদ্দিনের ছেলে সভা মিয়া (২৫), আসলাম মিয়ার ছেলে মামুন (২৫) ও ওয়ারলিম এর ছেলে আরিফ (২৬)সহ অজ্ঞাত ৭/৮ জন। মামলার অভিযোগ থেকে জানা গেছে, গত ১১ জানুয়ারী বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টারদিকে নাম উল্লেখিত ৬ জন আসামীসহ ৭/৮ অজ্ঞাত ব্যক্তি হাতে লোহার রড, চাপাতি, দা, শাবলসহ বিভিন্ন ধারালো অস্ত্র নিয়ে আশুলিয়া মডেল টাউনের এল ব্লকে বালু ভরাটের কাজে বাধা দেয়। পরে ভয়ভীতি দেখিয়ে শ্রমিকদের তাড়িয়ে দেয়। এসময় তারা চীফ সিকিউরিটি অফিসারের নিকট ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। টাকা না দেওয়া পর্যন্ত কোন কাজ করতে পারবে না বলে বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদান করেন। পরে বিষয়টি আশুলিয়া মডেল টাউনের কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হলে তারা কোন চাঁদাবাজকে চাঁদা দিবে না বলে জানায়। এ সময় চাঁদাবাজরা সিকিউরিটি অফিসার মতিউর রহমানকে বিভিন্ন ধরনের হুমকিসহ বালু ভরাট করতে নিষেধ কওে এবং বিভিন্ন প্রজাতির ৫০ টি গাছপালা কেটে ক্ষতি সাধন ও শ্রমিকদের বুষ্টার মেশিনের বিভিন্ন যন্ত্রপাতি এবং বুষ্টার মেশিনে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলে চলে যায়। এলাকাবাসী জানায়, বিরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সূজনের নাম ভাঙ্গিয়ে দির্ঘদিন ধরে এলাকায় চুরি, ডাকাতি ও চাঁদাবাজি করে আসছে মেরেজ মিয়া ও তার দলবল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*