Friday , August 23 2019
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / সারাদেশ / আশুলিয়ায় শ্রমিক অসন্তোষ : এবার হা-মীম গ্রুপের ৯১ শ্রমিক বরখাস্ত

আশুলিয়ায় শ্রমিক অসন্তোষ : এবার হা-মীম গ্রুপের ৯১ শ্রমিক বরখাস্ত

মাহমুদুল বিশ্বাস : আশুলিয়ায় বেতন বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিক আন্দোলনে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে উইন্ডি গ্রুপের ১২১জন এবং ফাউন্টেইন কারখানার ১৩৫ জন শ্রমিক বরখাস্তের পর এবার হা-মীম গ্রুপের ৯১ জন শ্রমিককে সাময়িক বরখাস্ত করেছে কর্তৃপক্ষ। রবিবার সকালে আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকায় হা-মীম গ্রুপের দ্যাটস ইট স্পোর্টস ওয়্যার লি:, প্রিন্টিং এমব্রয়ডারি এ্যাপারেলস লি:, রিফাত গার্মেন্ট লি: ও এক্সপ্রেস ওয়াশিং এন্ড ডায়িং লি: কারখানার প্রধান ফটকের বাহিরে বরখাস্তের নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। কারখানা কর্তৃপক্ষ জানায়, আশুলিয়ায় বেতন বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিক অসন্তোষের সময় হা-মীম গ্রুপের বরখাস্তকৃত ওই ৯১ জন শ্রমিক কারখানার অন্যান্য শ্রমিকদের আন্দোলনে নামার জন্য উস্কানি দেয়। পরবর্তীতে শ্রমিকদের টানা আন্দোলনের মুখে কারখানা কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানা বন্ধ ঘোষণা করেত বাধ্য হয়। কারখানার নিয়ম শৃংখলা ভঙ্গ করে সাধারণ শ্রমিকদের উস্কানি দিয়ে আন্দোলনে নামানোর অভিযোগে শ্রম আইন অনুযায়ী তাদের বরখাস্ত করা হয়।

 

শিল্প পুলিশ-১ এর পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, শ্রমিকরা কাজে ফিরতে চায়। তারা সকালে কারখানার মূলফটকে এসে বন্ধ দেখে ফেরত যায়। তাদের কাজের উদ্দেশ্যেই আসে। বিষয়টি আমরা মালিকপক্ষ ও বিজিএমইএকে অবহিত করছি। বিজিএমইএর কারখানা বন্ধের নির্দেশনার পর টানা পাঁচ দিন ধরে বন্ধ রয়েছে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের ৫৯ টি পোষাক কারখানা। আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এলেও এখন পর্যন্ত কারখানা গুলো খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়নি বিজিএমইএ। তবে রোববার সকালে শিল্পাঞ্চলের জামগড়া এলাকায় ডিজাইনার জিন্স নামের একটি পোষাক কারখানায় কাজে যোগ দিয়েছে শ্রমিকরা। অন্যান্য কারখানা গুলোর সামনেও কাজে যোগ দিতে আসা শ্রমিকদের ভিড় দেখা গেছে। তবে কারখানা বন্ধ থাকায় তারা যোগ দিতে পারেনি। পরে ওই শ্রমিকদের কারখানার সামনে থেকে সরিয়ে দিয়েছে পুলিশ।

আজ সকালেও শিল্পাঞ্চলের জামগড়া, ছয়তলা, নরসিংহপুর এলাকায় আইনশৃংখলা বাহিনীর বিপুল সদস্যকে অবস্থান করতে দেখা গেছে । বন্ধ ঘোষিত প্রতিটি কারখানার সামনেই অবস্থান নিয়েছে তারা। কারখানারগুলোর আশেপাশে শ্রমিকদের গণ জমায়েত থেকে বিরত থাকতে আজও মাইকিং করা হয়েছে। যানচলাচল সীমিত করা হয়েছে বাইপাইল-আব্দুল্লাহপুর সড়কে। সকাল থেকে শিল্পাঞ্চলের কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। এদিকে অসন্তোষে অংশ গ্রহণ এবং উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে আশুলিয়া থানায় এ পর্যন্ত সাতটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় প্রায় দেড় হাজার শ্রমিক ও শ্রমিক নেতাকে আসামী করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত আটক করা হয়েছে প্রায় ৩০ জনকে। এ পর্যন্ত বিভিন্ন কারখানায় বহিষ্কার করা হয়েছে তিন শতাধিক শ্রমিককে। এদিকে শ্রমিক আন্দোলনের অন্যতম উস্কানিদাতা একুশে টেলিভিশন ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাভার প্রতিনিধি নাজমুল হুদার প্রেস ক্লাবের সদস্যপদ স্থগিত করেছে সাভার প্রেস ক্লাব। সাভার প্রেস ক্লাবের দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক ইমদাদুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*