Friday , August 23 2019
সর্বশেষ সংবাদ :
Home / সারাদেশ / তীব্র শীতে খোলা আকাশের নিচে সাঁওতালরা

তীব্র শীতে খোলা আকাশের নিচে সাঁওতালরা

দেশবাংলা প্রতিদিন ডেস্ক: পূর্ণিমা মালো ভাত রান্না করছিলেন। জয়পুর মিশনারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনের সামনের মাঠে ইউক্যালিপটাস গাছের সারি। অদূরে বেশ কয়েকটি তাঁবু। গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জ বাণিজ্যিক খামার থেকে উচ্ছেদ করা সাঁওতাল পূর্ণিমা ও তাঁর সঙ্গীদের আপাতত আশ্রয় এসব তাঁবুতে। তাঁবুর সামনে বানানো চুলায় রান্না বলতে ভাত আর শাক সেদ্ধ বা কলাই সেদ্ধ।

গত রোববার রাত তখন নয়টা। হাড় কাঁপানো শীত। ঘন কুয়াশা আর জমাট বাঁধা অন্ধকার। আলো কেবল চুলার আগুন আর এর–ওর হাতের মুঠোফোনের টর্চ। উচ্ছেদের পর মাস দেড়েক ধরে খোলা আকাশের নিচে নাওয়া-খাওয়া আর তাঁবুতে বাস চলছে সাঁওতালদের।

পূর্ণিমার বাড়ি দিনাজপুর জেলার চিতল গ্রামে। তিনি বললেন, সেখানে স্বামী ও ছেলেমেয়েরা আছে। সাহেবগঞ্জ খামারে তাঁর পৈতৃক জমি উদ্ধারে সপরিবারে গত জুনে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল–অধ্যুষিত মাদারপুর গ্রামে আসেন। জুলাইয়ে অন্যদের সঙ্গে তিনিও সাহেবগঞ্জ খামারে দুটি ঘর তুলেছিলেন। ৬ নভেম্বর রাতে পুলিশ সাহেবগঞ্জ খামারে সাঁওতালদের বসতি উচ্ছেদ করার পর এই তাঁবুতে বাস করছেন। ছেলেমেয়েরা দিনাজপুর ফিরে গেছে। মাঝে মাঝে আসে। সেখানে অন্যের জমিতে ঘর তুলে পূর্ণিমারা থাকেন। তিনি পড়ে আছেন সরকার যদি খামারে তাঁদের একটু জায়গা করে দেয়, সেই পুনর্বাসনের আশায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*